মাত্র পাওয়াঃ স্কুলে বার্ষিক পরীক্ষা শুরু তারিখ ঘোষণা করলেন

আগামী ২৪ থেকে ৩০ নভেম্বরের মধ্যে ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষা এবং

১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নির্বাচনী পরীক্ষা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে সরকার।

বুধবার (১৩ অক্টোবর) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে নিম্নে বর্ণিত নির্দেশনা মানতে হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়-

১. বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণ গণিত বিষয়ে পরীক্ষা নিতে হবে।

২. পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের মান হবে ৫০ নম্বরের।

৩. প্রতিটি বিষয়ের পরীক্ষার সময় হবে ১ ঘণ্টা ৩০ মিনিট।

৪. সিলেবাস: যে সব অধ্যায় থেকে অ্যাসাইনমেন্ট (বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণ গণিত) দেওয়া হয়েছে সে সব অধ্যায় এবং

১২ সেপ্টেম্বর থেকে শ্রেণিকক্ষে যে সব অধ্যায়ের ওপর পাঠদান করা হয়েছে তা ষষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য সিলেবাস।

৫. বার্ষিক/নির্বাচনী পরীক্ষার নম্বর বিন্যাস:

ক. বাংলা (প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র) বিষয়ের নম্বর হবে- ৫০ (লিখিত ৩৫+এমসিকিউ ১৫)।
খ. ইংরেজি (প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র) বিষয়ের নম্বর হবে- ৫০ (প্রথম পত্র ৩০+দ্বিতীয় পত্র ২০)।

গ. সাধারণ গণিত বিষয়ের নম্বর হবে- ৫০ (লিখিত ৩৫+এমসিকিউ ১৫)।
ঘ. প্রত্যেক শিক্ষার্থীর বার্ষিক পরীক্ষার নম্বরের সঙ্গে চলমান সব বিষয়ের অ্যাসাইনমেন্টের ওপর ৪০ নম্বর যোগ করতে হবে।
ঙ. বার্ষিক পরীক্ষায় সপ্তম থেকে ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমে অংশ নেওয়া ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ওপর আরও ১০ নম্বর যোগ করতে হবে।

ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমে অংশ নেওয়া ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার সঙ্গে বৃক্ষরোপণ প্রকল্পে তাদের কর্মতৎপরতা যোগ করে এই ১০ নম্বর যোগ করতে হবে।

অর্থাৎ মোট ১০০ নম্বরের (৫০+৪০+১০) ওপর প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে মূল্যায়ন করে বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল তৈরি করে শিক্ষার্থীদের প্রগ্রেসিভ প্রতিবেদন দিতে হবে।
৬. ২০২১ শিক্ষাবর্ষে এ পরীক্ষা ছাড়া অন্য কোনো পরীক্ষা নেওয়া যাবে না।

৭. অবশ্যই যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে বার্ষিক ও নির্বাচনী পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে হবে।

একাত্তর/এআর

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*